পেওনিয়ার মাস্টার কার্ড হাতে পাওয়ার সঠিক পদ্ধতি

  • আপডেটের সময় : শুক্রবার, ৫ মার্চ, ২০২১
  • ১০২ বার দেখা হয়েছে ।
পেওনিয়ার-মাস্টার-কার্ড-হাতে-পাওয়ার-সঠিক-পদ্ধতি

পেওনিয়ার মাস্টার কার্ড হাতে পাওয়ার সঠিক পদ্ধতি: পেওনিয়ার হচ্ছে বিশ্বব্যাপী সবচেয়ে জনপ্রিয় ভার্চুয়াল ব্যাংকিং সার্ভিস। পেওনিয়ার একাউন্ট ব্যবহারের মাধ্যমে বিশ্বব্যাপী সব ধরনের অনলাইন মার্কেট লেনদেন করা যায়। যারা অনলাইনের মাধ্যমে বিজনেস করে তাদের বেশিরভাগ মানুষ পেওনিয়ার ব্যাংক ব্যবহার করছে। আমি নিজেও পেওনিয়ার ব্যাংক ব্যবহার করছি। পেওনিয়ার ব্যাংকের মাস্টার কার্ড সবচেয়ে সুবিধাজনক এবং জনপ্রিয়। আপনি যদি ইন্টারন্যাশনাল লেনদেন প্রয়োজন মনে করেন আমি আপনাকে পরামর্শ দিচ্ছি আপনি পেওনিয়ার একাউন্ট ব্যবহার করেন। খুবই নিরাপদ ও সহজভাবে লেনদেন করুন। বাংলাদেশ আমার বহু ভক্ত ছাত্র-ছাত্রীর রয়েছে তাদের জন্য পেওনিয়ার সম্পর্কে আমার কিছু আলোচনা নিচের ভিডিওতে দেখে নিন।

পেওনিয়ার একাউন্ট খোলা খুবই সহজ তবে একাউন্ট খোলার জন্য আপনি অবশ্যই সঠিক তথ্য প্রদান করতে হবে। কখনো নকল তথ্য ব্যবহার করে অ্যাকাউন্ট খোলার চেষ্টা করবেন না এটা আইনত দণ্ডনীয়। সঠিক তথ্য ব্যবহারের মাধ্যমে অ্যাকাউন্ট খোলা সবচেয়ে নিরাপদ। আপনার লেনদেন হবে নিরাপদে। পেওনিয়ার একাউন্ট খুলে আপনি 25 ডলার বোনাস জিতে নিতে পারেন। পেওনিয়ার একাউন্ট খোলার জন্য এবং 25 ডলার বোনাস পাওয়ার জন্য আপনি নিচে দেওয়া লিংকে ক্লিক করে একাউন্ট খুলতে হবে।

পেওনিয়ার-মাস্টার-কার্ড-হাতে-পাওয়ার-সঠিক-পদ্ধতি

ব্যক্তিগত প্রয়োজনে ইন্টারন্যাশনাল মার্কেটপ্লেসে মাস্টার কার্ড দিয়ে লেনদেন করার জন্য পেওনিয়ার একাউন্ট খুলে নিন। আপনাদের সহযোগিতা করার জন্য আমরা ভিডিও টিউটোরিয়াল তৈরি করেছি। ভিডিও টিউটোরিয়াল এর মাধ্যমে আমরা লাইভ দেখিয়ে দিয়েছি একাউন্ট খোলার সঠিক পদ্ধতি। আমাদের ভিডিওটি দেখে আপনি একাউন্ট খোলার জন্য সঠিক গাইডলাইন পেয়ে যাবেন। ভিডিও টিউটোরিয়াল কে আমরা কয়েকটি পর্ব আকারে প্রকাশ করেছি। শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত সবগুলো পর্ব দেখার মাধ্যমে আপনি পেওনিয়ার সম্পর্কিত সব কিছুই জানতে পারবেন। আর দেরি না করে এখনি খুলে ফেলুন আপনার কাঙ্খিত পেওনিয়ার একাউন্ট একাউন্ট। খোলার পূর্বে নিচের ভিডিওটি দেখে নিন। প্রথম পর্ব টিউটোরিয়াল ভিডিওর মাধ্যমে আপনি শিখতে পারবেন-

সঠিক পদ্ধতিতে ফরম ফিলাপ করে কিভাবে একাউন্ট খুলতে হয়

অ্যাকাউন্ট খোলার সাথে সাথেই অ্যাড্রেস ভেরিফিকেশন কিভাবে করতে হয়

পেওনিয়ার ব্যালেন্স উইথড্র দেওয়ার জন্য নিজের দেশের ব্যাংক কিভাবে যুক্ত করতে হয়

নিজের দেশের ব্যাংক যুক্ত করার পর কিভাবে ভেরিফিকেশন করতে হয়

ধন্যবাদ বন্ধুরা, প্রথম পর্ব দেখার মাধ্যমে আপনারা শিখে ফেলেছেন জেনে গিয়েছেন পেওনিয়ার একাউন্ট খোলার সঠিক পদ্ধতি। আশাকরি আপনি একাউন্ট খুলতে সক্ষম। এখন আপনি সফলতার দ্বিতীয় ধাপ অতিক্রম করতে হবে। এখন আপনার প্রয়োজন ইন্টারনেট মার্কেটপ্লেস থেকে উপার্জিত টাকা পেওনিয়ার একাউন্ট এ উইথড্র দেওয়া। এফিলিয়েট মার্কেটিং, ফ্রীল্যান্সিং মার্কেটপ্লেস, অনলাইন পণ্য সামগ্রী বিক্রয় মার্কেটপ্লেস, ই-কমার্স ওয়েবসাইট থেকে ইনকাম। ইত্যাদি মাধ্যম থেকে উপার্জিত ব্যালেন্স আপনি পেওনিয়ার একাউন্টে ট্রান্সফার বা উইথড্রো দিতে হবে। যে কোন পদ্ধতিতে আপনার পেওনিয়ার একাউন্টে সর্বনিম্ন 100 ডলার ব্যালেন্স ব্যবস্থা করতে হবে। আমি ফাইবার মার্কেটপ্লেস এ কাজ করি। ফাইবার মার্কেটপ্লেস হচ্ছে ইন্টারন্যাশনাল ফ্রিল্যান্সিং মার্কেটপ্লেস। আপনার মাঝে তথ্য প্রযুক্তি ব্যবহারের মাধ্যমে যে সেবা প্রদানের অভিজ্ঞতা রয়েছে সেটি ফাইবার মার্কেটপ্লেস এর মাধ্যমে বিশ্বব্যাপী বিক্রয় করতে পারবেন। ফাইবার মার্কেটপ্লেস এর সেবা সমূহ রেফার বা শেয়ার করার মাধ্যমে আপনি এফিলিয়েট কমিশন ইনকাম পাবেন। ফাইবার মার্কেটপ্লেস এ জয়েন করার জন্য আপনি নিচের লিংকে ক্লিক করুন।

https://www.fiverr.com/?referral_campaign=RPCampaign1&referral_invitee=social&referral_inviter=64597735&referral_key=14446bea09fd636c04169ac5b01533e1a9b9cf50&show_join=true&utm_campaign=referral_program_show&utm_content=&utm_medium=shared&utm_source=get_url&utm_term=

ফাইবার মার্কেটপ্লেস এ উপার্জিত অর্থ পেওনিয়ার একাউন্ট এর মাধ্যমে খুব সহজে রিসিভ করা যায়। পেওনিয়ার একাউন্ট এ জমাকৃত অর্থ মাস্টার কার্ড ছাড়াই দেশি ব্যাংকে উইথড্র দিতে পারবেন। ফাইবার মার্কেটপ্লেস একাউন্টের সাথে পেওনিয়ার ব্যাংক একাউন্ট যুক্ত করার সঠিক পদ্ধতি আমরা ভিডিও টিউটেরিয়াল আকারে তৈরি করেছি। নিম্নে প্রকাশিত ভিডিও টিউটোরিয়াল দেখার মাধ্যমে আপনি শিখতে পারবেন কিভাবে ফাইবার পেমেন্ট মেথড এর সাথে পেওনিয়ার ব্যাংক একাউন্ট যুক্ত করতে হয়।

উপরোক্ত ভিডিওটি দেখার মাধ্যমে আপনি শিখে ফেলেছেন পেওনিয়ার মাস্টার কার্ড হাতে পাওয়ার দ্বিতীয় ধাপ। আমি ফাইবারের সাথে পেওনিয়ার যুক্ত করেছি। আপনারা চাইলে করে নিতে পারেন আর যদি আপনাদের অন্য কোন ইনকাম সোর্স থাকে তাহলে সেখানে পেওনিয়ার পেমেন্ট মেথড যুক্ত করে নিবেন। আমাদের টার্গেট হচ্ছে পেওনিয়ার একাউন্ট এ 100 ডলার জমা করা। আমি ফাইবার মার্কেটপ্লেস থেকে উপার্জন করেছি এখন এই উপার্জিত অর্থ পেওনিয়ার একাউন্টে ট্রান্সফার করবো। কিভাবে ফাইবার একাউন্টে উপার্জিত অর্থ পেওনিয়ার একাউন্টে ট্রান্সফার করতে হয় সেই টিউটিরিয়াল ভিডিওটি আমরা তৈরি করেছি। নিম্নে প্রদত্ত ভিডিওটি দেখে আপনি শিখে নিতে পারবেন কিভাবে ফাইবার একাউন্টে উপার্জিত অর্থ পেওনিয়ার একাউন্টে ট্রান্সফার করতে হয় বা ফাইবার ব্যালেন্স পেওনিয়ার একাউন্ট এর মাধ্যমে উইথড্রো দেওয়ার সঠিক পদ্ধতি।

পেওনিয়ার হচ্ছে ইন্টারন্যাশনাল ব্যাংক একাউন্ট। এখন আবার পেওনিয়ার একাউন্ট এ 100 ডলার ব্যালেন্স আছে। এখন আমরা আমাদের পেওনিয়ার ব্যালেন্স খরচ করব। ইন্টারন্যাশনাল মার্কেটপ্লেস থেকে কোন কিছু কেনাকাটা করতে হলে মাস্টার কার্ড প্রয়োজন কিন্তু আমাদের হাতে মাস্টারকার্ড এখনও নেই। আমাদের হাতে যেহেতু মাস্টারকার্ড নেই তাই আমরা এখন পেওনিয়ার ব্যালেন্স আমাদের বাংলাদেশি ব্যাংকে উইথড্র দিবো। কিভাবে পেওনিয়ার ব্যালেন্স বাংলাদেশি ব্যাংকে উইথড্র দিতে হয় সেই টিউটোরিয়াল ভিডিওটি আমরা প্রফেশনাল ভাবে তৈরি করেছি। নিম্নে প্রকাশিত ভিডিও টিউটোরিয়াল দেখার মাধ্যমে আপনি শিখতে পারবেন পেওনিয়ার ব্যালেন্স কিভাবে বাংলাদেশ ডাচ বাংলা ব্যাংকে উইথড্রো দিতে হয়।

কিভাবে হাতে পাবেন পেওনিয়ার মাস্টার কার্ড। ধাপে ধাপে আমরা আমাদের কাঙ্খিত লক্ষ্যে পৌঁছার কাছাকাছি চলে এসেছি। এখন আমরা পেওনিয়ার মাস্টার কার্ড এর জন্য আবেদন করতে সক্ষম। কারণ আমরা পেওনিয়ার মাস্টার কার্ড পাওয়ার আবেদন করার সকল চাহিদা পূরণ করে ফেলেছি। সতর্কতার সহিত সঠিকভাবে মাস্টার কার্ডের জন্য এখন আমরা আবেদন করব। কিভাবে পাব পেওনিয়ার মাস্টার কার্ড । মাস্টার কার্ড হাতে পাওয়ার পদ্ধতি ফ্রি ভিডিও টিউটোরিয়াল আমরা ধাপে ধাপে প্রকাশ করেছি । পেওনিয়ার একাউন্ট তৈরীর সময় প্রদানকৃত তথ্য এবং আপনার দেশি ব্যাংক একাউন্টে প্রদানকৃত তথ্য এবং আপনার জাতীয় পরিচয় পত্রের প্রধান কিছু তথ্য সবকিছু একটির সাথে আরেকটি মিলতে হবে। মাস্টারকার্ডের আবেদনের পূর্বে আপনি আপনার লোকাল ব্যাংক স্টেটমেন্ট সংগ্রহ করে নিবেন । নিচের প্রকাশিত ভিডিও টিউটোরিয়াল দেখে আপনি শিখে নিন কিভাবে মাস্টার কার্ড এর জন্য এপ্লাই করতে হয়। কিভাবে মাস্টার কার্ডের তথ্য ভেরিফাই করতে হয়। মাস্টার কার্ড তথ্য ভেরিফাই করতে কি কি ডকুমেন্ট প্রয়োজন হয়। ভিডিওতে বিস্তারিত দেওয়া আছে আপনি সম্পূর্ণ ভিডিও দেখে শিখে নিন মাস্টার কার্ড আবেদন পদ্ধতি।

দীর্ঘ অপেক্ষার পর আমরা হাতে পাব পেওনিয়ার মাস্টার কার্ড। সঠিক পদ্ধতিতে আবেদন করার পর মাস্টারকার্ডটি শিফট অবস্থায় থাকবে। মাস্টার কার্ডে প্রদানকৃত ঠিকানা অনুযায়ী আপনার মাস্টার কার্ড ২০/২৫ দিনের মধ্যে হাতে পাবেন। মাস্টার কার্ড হাতে পাওয়ার তারিখ আপনি ইমেইলের মাধ্যমে পেয়ে যাবেন । আপনার প্রদানকৃত ঠিকানায় অবস্থিত পোস্ট অফিসে নিয়মিত যোগাযোগ রাখবেন। পোস্ট অফিস কর্মকর্তার মোবাইল নাম্বার সংগ্রহ করে যোগাযোগ করবেন। মাস্টার কার্ড আসার পর আপনি যদি সংগ্রহ না করেন তাহলে আবার ফেরত চলে যাবে। পেওনিয়ার থেকে প্রদানকৃত তারিখ অনুযায়ী যথাসময়ে আমি পোস্ট অফিস থেকে মাস্টারকার্ডটি সংগ্রহ করেছি। হাতে পাওয়ার পর মাস্টার কার্ড একটিভ করা জরুরি। মাস্টার কার্ড একটিভ করার পর মাস্টার কার্ড ব্যবহার করতে সক্ষম হবেন।  কিভাবে মাস্টার কার্ড একটিভ করতে হয় ফ্রি ভিডিও টিউটোরিয়াল নিচে প্রদান করা আছে। নিচের ভিডিও দেখার মাধ্যমে আপনি শিখে নিন কিভাবে আপনার হাতে পাওয়া মাস্টারকার্ডটি অ্যাক্টিভ করবেন।

অভিনন্দন প্রিয় বন্ধুরা, প্রিয় শিক্ষার্থীরা ইতিমধ্যে আপনারা শিখে ফেলেছেন মাস্টার কার্ড হাতে পাওয়ার পদ্ধতি শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত। আপনাদের দক্ষতা বৃদ্ধির জন্য তথ্য প্রযুক্তি সম্পর্কিত বিভিন্ন ভিডিও টিউটোরিয়াল কোর্স আমরা ফ্রি প্রকাশ করি। আমাদের সাথে যুক্ত হয়ে আপনি নিজেকে ডেভলপ করার রাস্তা খুঁজে পাবেন। আমাদের সাপোর্ট ফোরাম হচ্ছে ফেসবুক গ্রুপ। আমরা সাপোর্ট ফোরাম এর মাধ্যমে তথ্যপ্রযুক্তি বিষয়ে একে অপরকে সহযোগিতা করি। আমাদের সাপোর্ট ফোরাম ফেসবুক গ্রুপে যুক্ত হয়ে আপনি ফ্রি সহযোগিতা নিন নিজেকে ডেভেলপ করুন। নিচে লিংকে ক্লিক করে আপনি আমাদের ফেসবুক গ্রুপ পেয়ে যাবেন।

https://www.facebook.com/groups/509454210007625/

আমাদের গ্রুপে জয়েন করার জন্য আপনাকে অসংখ্য ধন্যবাদ। আপনি কি হতে চান কিভাবে আপনার ক্যারিয়ার ডেভলপ করতে চান আমাদের সঙ্গে শেয়ার করুন। এছাড়া আমাদের অন্যান্য টিউটরিয়াল ভিডিও দেখার জন্য আপনি আমাদের ইউটিউব চ্যানেল ঘুরে আসতে পারেন। আমাদের ইউটিউব চ্যানেলে ক্যাটাগরি অনুযায়ী প্লেলিস্ট এর মাধ্যমে ভিডিওগুলি কোর্স আকারে সাজানো আছে। আপনার পছন্দের কোর্স এখনই শুরু করে ফেলুন। নিচের লিংকে ক্লিক করে আমাদের ফ্রি ভিডিও টিউটোরিয়াল কোর্সসমূহ দেখে নিন।

wfreelance.com




Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category